বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
৪৪,৬০৮
সুস্থ
৯,৩৭৫
মৃত্যু
৬১০

বিশ্বে

আক্রান্ত
৬,০৪৫,৬৫৩
সুস্থ
২,৬৭১,৪৪০
মৃত্যু
৩৬৭,১১৬

করোনায় নিম্ন-মধ্যবিত্তদের জন্য লার্নার্সের “Fund for life”

করোনায় আক্রান্ত নিম্ন-মধ্যবিত্তদের পাশে দাড়িয়েছে লক্ষ্মীপুর জেলার স্বেচ্ছাসেবী অরাজনৈতিক সংগঠন লার্নার্স এসোসিয়েশন।
জাতির এই দুঃসময়ে লার্নার্স এসোসিয়েশনের উদ্যোগে করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য গঠন করা হয়েছে “Fund for life” নামক ফান্ড রাইজিং ইভেন্ট।এই ইভেন্টের মাধ্যমে ইতোমধ্যে সমাজের নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারকে প্রদান করা হয়েছে এক মাসের প্রয়োজনীয় খাবার উপকরণ। সংগঠনটির সদস্যরা লক্ষীপুর জেলার বিভিন্ন এলাকায় গত ১২ মে থেকে উপহার বিতরণের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

সংগঠনের উদ্যোক্তারা জানান, আমাদের অনুদান প্রদানের উদ্দেশ্য হচ্ছে,করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সাময়িক বিপর্যয় মোকাবেলা করা। এ ক্ষেত্রে আমরা ফোকাস করছি যেকোনো মানুষের কাছে অনুদানের জন্য যেতে লজ্জা পায় এমন অসহায় মানুষদের। যারা দরিদ্র নয় কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে তারা অসহায়।

অনুদান দেওয়ার ক্ষেত্রে তারা নিম্নে উল্লিখিত সমাজের নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষদের কয়েকটি শ্রেণিতে বিন্যস্ত করে অনুদান প্রদান করছেন।
★সীমিত আয়ের বিক্রেতাঃ যাদের বেচাকেনা কোনমতোই 20-30 হাজার টাকার বেশি হত না এবং কোনো জমানো অর্থ নেই।
★যানবাহন শ্রমিক: সিএনজি ড্রাইভার, গাড়ির হেলপার এধরণের শ্রমিক। বর্তমানে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ থাকায় তারা ঘরে বসে আছে।
★নির্মাণ শ্রমিক: যাদের এখন কোন কাজ হাতে নেই।
★সীমিত আয়ের কৃষক : যাদের পণ্য উৎপাদন বন্ধ আছে।
★বেসরকারি কর্মচারীরা : যারা মাসিক বেতন পাচ্ছেনা/ছাটাইয়ের শিকার হয়েছে।
★দরিদ্র শিক্ষার্থীঃ যারা টিউশনি/ছোটখাটো চাকরি করে পরিবার চালায় এবং আয়ের মাধ্যম এখন বন্ধ।
★মসজিদ-মাদ্রাসার খাদেমঃ যারা সচারচর হাত পাতে না।

উল্লেখ্য, লার্নার্স এসোসিয়েশন কিছু উদ্যমী তরুণের হাত ধরে ২০০৭ সাল থেকে সমাজে শিক্ষা ও উন্নয়নমূলক বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। যার মধ্যে গ্রামপর্যায়ে উচ্চশিক্ষায় সচেতনতা, সামাজিক দায়বদ্ধতা ও নানানমূখি স্বেচ্ছাসেবা কার্যক্রম অন্তর্ভুক্ত।তারা কয়েকটি লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করছে।সেগুলো হচ্ছে-
★এস.এস.সি এবং এইচ.এস.সি শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষায় উদ্ভুদ্ধ করা।
★মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করা শিক্ষার্থীদেরকে সংগঠননের পক্ষ থেকে সম্বর্ধিত করা।
★উচ্চ শিক্ষা বিস্তারে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের আবেদন সাপেক্ষে আর্থিক সহায়তা প্রদান।
★শুদ্ধ উচ্চারণ ও ইংরেজি শিক্ষার ক্ষেত্রে পরামর্শ ও সহায়তা প্রদান।
★দূর্যোগের মূহুর্তে গ্রামের দূর্গতদের পাশে দাঁড়ানো ও গ্রামোন্নয়নে সর্বাত্নক সহযোগিতা করা।
★সামাজিক অসংগতি দূরকরণে সমাজ সচেতনামূলক বিভিন্ন বিষয়ে সেমিনারের আয়োজন করা।
★গ্রাম পর্যায়ে বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গদের থেকে নির্বাচিত ব্যক্তিত্বকে নিজ নিজ অবদানের জন্য সম্বর্ধিত করা।